বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০১:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
প্রত্যেক পুলিশ সদস্যের জন্য বছরে একবার প্রশিক্ষণের আয়োজন করা হয়েছে —– আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ লালমনিরহাটের কালীগঞ্জে​ গোসল করতে নেমে পানিতে ডুবে দুই কিশোরের মৃত্যু লালমনিরহাটে ইন্ট্রাকো সোলার পাওয়ার লিমিটেড কোম্পানী তিস্তার দূর্গম চরাঞ্চলে সৌর বিদ্যুৎ উৎপাদন উপকৃত হবে​ শৈলমারী চরের অবহেলিত ২০ হাজার পরিবার লালমনিরহাট জেলা পুলিশ কতৃক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৬তম শাহাদত বার্ষিকী পালিত লালমনিরহাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৬তম জাতীয় শোক দিবস পালিত লালমনিরহাটে যথাযোগ্য মর্যাদায় ৪৬তম জাতীয় শোক দিবস পালিত লালমনির কন্ঠ পত্রিকার সম্পাদকের সহধর্মিণী শিক্ষিকা আন্জুমান আরা বেগমের মৃত্যুতে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হাতীবান্ধায় বিয়ের ১৫দিন পর শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসে পুকুরে গোসল করতে নেমে নতুন জামাইয়ের মৃত্যু লালমনিরহাটে মোটর সাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে নবম শ্রেণি এক ছাত্রের মৃত্যু আসন্ন বর্ষা মৌসুমকে সামনে রেখে লালমনিরহাট পৌরসভার ড্রেনেজ ব্যবস্থা ঢেলে সাজানোর কাজ চলছে

চার স্ত্রীর পর প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন সায়েম

লালমনির কন্ঠ রিপোর্ট:
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৫৮ বার দেখা হয়েছে

চার স্ত্রীর পর প্রেমিকাকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন সায়েম

জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না।।​ ওষুধ কোম্পানীর বিক্রয় প্রতিনিধি আবু সায়েম। তবে তিনি নিজেকে একজন ধনাঢ্য ব্যক্তি হিসেবে পরিচয় দিতে পছন্দ করেন। নারী সঙ্গ তার খুবই প্রিয়। পোশাক-পরিচ্ছেদে সায়েম নিজের সৌন্দর্যকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে নারী পটান বলে এলাকার অনেকে জানিয়েছেন। তাই সব নিয়মকানুনকে বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে একের পর এক বিয়ে করেই চলেছেন তিনি।​

এভাবে তিনি এর আগে আটটি বিয়ে করেছেন। কখনো বিয়ে না করেও নারীদের সঙ্গে বিয়ে বহির্ভূত সর্ম্পকে জড়িয়ে যান। সায়েমের প্রথম স্ত্রী দুই সন্তানের জননী শাহানাজ পারভীন সাংবাদিকদের কাছে এসব তথ্য দিয়েছেন। স্বামীর এসব বেআইনি, অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিচার চেয়ে ৩ ফেব্রুয়ারি লালমনিরহাট জেলা জজ কোর্টে একটি মামলা করেন।​

সায়েম লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার বাউরা ইউপির নবীনগর এলাকার জহির উদ্দিনের ছেলে। সায়েমের ৮ বিয়ের বিষয়টি এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালে সায়েমের সঙ্গে শাহানাজ পারভীনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই শুরু হয় যৌতুকের বাহানা। যৌতুক লোভী স্বামীর নির্যাতনের মধ্যেই দুই সন্তানের জননী হন শাহানাজ। এরপর প্রথম স্ত্রীর সম্মতি ছাড়াই চুয়াডাংগার দবির উদ্দিনের মেয়ে লিপি বেগমকে স্ত্রী পরিচয়ে বাড়িতে তোলেন।

শাহানাজ পারভীন তখন উপায় না পেয়ে সবকিছু মেনে নিয়ে সংসার করেন। প্রথম স্ত্রীর ভাষ্যমতে দ্বিতীয় স্ত্রীকেও সায়েম নির্যাতন করতে শুরু করেন। নির্যাতনের মাত্রা এতবেশি বেড়ে যায় যে, বিয়ের ২ বছরের মাথায় দ্বিতীয় স্ত্রী স্বামীকে ছেড়ে পালিয়ে যান। এরপর সায়েম লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধায় তৃতীয় বিয়েটি করেন। জানা গেছে, সায়েমের তৃতীয় স্ত্রী হাতীবান্ধার সিংগিমারী এলাকার মিয়াজানের মেয়ে কেয়া মনি। পরে শ্বশুর ৭০ হাজার টাকায় রফাদফা করে কেয়া মনিকে বাবার বাড়ি পাঠিয়ে দেন।​ ​

সায়েম এরপর চতুর্থ বিয়ের জন্য অস্থির হয়ে উঠেন। এই অস্থিরতার মধ্যে সায়েমের নজর পড়ে পাটগ্রাম উপজেলার বাউরায় প্রতিষ্ঠিত কিন্ডার গার্টেনের শিক্ষিকা সাজেদা আক্তার কবিতার উপর। শুরু হয় প্রেমের অভিনয়। এক পর্যায়ে গরীব ঘরের মেয়ে কবিতাকে ভুলিয়ে-ভালিয়ে নিয়ে পালিয়ে যান সায়েম।

সায়েম কবিতাকে নিয়েই আছেন বলে তার স্ত্রী জানিয়েছেন। এরপর সায়েম কুড়িগ্রামে গিয়ে বিয়ে করেন। পরে কুড়িগ্রাম থেকে ওই মেয়ের বাবা সায়েমের প্রথম স্ত্রীর কাছে এসে সবকিছু জেনেশুনে ফিরে গিয়ে মেয়েকে ছাড়িয়ে নেন।

সায়েমের এসব কর্মকাণ্ডের খোঁজ নিতে তার এলাকায় গেলে বেড়িয়ে আসে আরো অনেক তথ্য। এলাকার অনেকেই তার ওপর ক্ষুব্ধ। এলাকাবাসীদের মতে, সায়েম নারীলোলুপ, ঠক ও প্রতারক টাইপের। অনেকের কাছে বিভিন্ন ছলনায় টাকা নিয়ে আর ফেরত দেয়নি। এখন সে কবিতা নামের একজন শিক্ষিকাকে নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

এ বিষয়ে কথা বললে সায়েম বলেন, তাহলে আপনারা এখন কি করতে চান? আপনাদের কি করার আছে? আদালতে মামলা করেছে, বিষয়টি আদালত দেখবে।

আবু সায়েমের মতে, তার স্ত্রী মামলা করেছেন সেটা আইন আদালতের বিষয়। তবে একাধিক বিয়ের বিষয়টি তিনি স্বীকার করেন নাই।

এ বিষয়ে বাউড়া ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল মতিন জানালেন, শুনেছি সায়েম নামের ওই যুবক সাজেদা বেগম কবিতাকে নিয়ে পালিয়েছে। আমি সাজেদা বেগমের পরিবারকে আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দিয়েছি। এর বেশি কিছু জানি না।

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Lalmonir Kantho
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102